মায়ের সাথে “সোহাগ চাঁদ বদনী ধনী” গানে দুর্দান্তভাবে কোমর দোলালেন গুনগুন ওরফে তৃণা! ঝড়ের বেগে ভাইরাল হল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ধারাবাহিকগুলোর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক হচ্ছে খরকুটো । এই খরকুটো ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায় কৌশিক দে অর্থাৎ যিনি এই ধারাবাহিকে সৌভাগ্যের চরিত্রে অভিনয় করছে এবং তৃণা সাহা কে যিনি এই ধারাবাহিকে গুনগুন এর চরিত্রে অভিনয় করছেন ।

এই দুজন এর অভিনয় নজর কে-ড়েছে দর্শকদের । তাইতো টিআরপি নিরিখে মাঝেমধ্যে পিছনে ফেলে দেয় বিভিন্ন জনপ্রিয় ধারাবাহিক গুলিকে । এবার গুনগুনের দ্বিতীয় বিয়ে একদম ঠিক শুনেছেন প্রথম বিয়ে বাস্তব জীবনে হলও দ্বিতীয়বারের জন্য অভিনয় জগতে বিয়ের পর্ব চলছে গুনগুনের ।

অন স্ক্রিনে যাদেরকে আমরা তিক্ত-তায় পরিণত করি অর্থাৎ যাদের সাথে সম্পর্ক মনে করি যে তিক্ত রয়েছে অফ স্ক্রিনে কিন্তু তাদের সাথে সম্পর্ক অভিনেত্রীদের ততটাই ভালো । ঠিক সেই চিত্র দেখা গেল এই ভিডিওর মাধ্যমে । ধারাবাহিক জগতের যাবতীয় ঘটনা আমরা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে জানতে পারি।

তার পাশাপাশি জানতে পারি সেই সমস্ত ধারাবাহিকে অভিনয় করা অভিনেতা-অভিনেত্রীদের সোশ্যাল হ্যা-ন্ডেল এর মাধ্যমে । ঠিক তেমনি সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া এবং বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় হ্যান্ডেলে এই ভিডিওর দেখা মিলল যেখানে মা এবং মেয়ে একসাথে নাচ করছে ।

গুনগুন এবং সৌভাগ্য দুটি সম্পূর্ণ পৃথক মান-সিকতা সম্পন্ন মানুষ । কিন্তু তবুও তাদের মধ্যে সংসারধর্ম ব্যাপক পরিমাণে চলছে । বিয়ের অভিনয় দিয়ে শুরু হয় এই ধারাবাহিকটি ।কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে একসাথে থাকার ফলে তারা একে অপরকে ভালোবেসে ফেলে ।কিন্তু গুনগুনের মা অর্থাৎ অভিনেত্রী মালবিকা সাথে গুনগুনের সম্পর্ক ততটা ভালো নয় অনস্ক্রিনে । অভিনেত্রীর পাশাপাশি মালবিকা একজন নৃত্যশিল্পী ।এবার সেই নাচের প্রকাশ ঘটল এই ভিডিওর মাধ্যমে ।

সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ পেয়েছে ইউটিউবে সেখানে দেখা যাচ্ছে গুনগুনের দ্বিতীয়বারের জন্য বিয়ে হচ্ছে ধারাবাহিকে । এবং সেই বিয়ের শুটিং চলাকালীন এর মধ্যেই অনস্ক্রিন মা অর্থাৎ মালবিকা সাথে পায়ে পা মেলান গুনগুন অর্থাৎ তৃণা সাহা । সোহাগ চাঁদ বদনী ধ্বনি নামক গানটিতে তুমুলভাবে নাচলেন এই দুই অভিনেত্রী । যা মুহূর্তের মধ্যে দখল করেছে খবরের শিরোনাম । যা দেখে মন্ত্রমুগ্ধ জনতারা ।তাইতো প্রতিমুহূর্তে বেড়ে চলেছে এর দর্শক সংখ্যা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button